ম্যানিংয়ের সাজা কমালেন ওবামা

ম্যানিংয়ের সাজা কমালেন ওবামা

এসবিসি ডেস্ক, বিবিসি অবলম্বনে : ২০১০ সালে উইকিলিকসের তথ্য ফাঁসের দায়ে সাজাপ্রাপ্ত আলোচিত সাবেক সেনা সদস্য চেলসি ম্যানিংয়ের সাজা মওকুফ করে দিচ্ছেন যুক্তরাষ্টের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। ফলে ২৯ বছর বয়সী চেলসি মুক্তি পেতে যাচ্ছেন আগামী ১৭ মে।

২০১৩ সালে  সাড়াজাগানো ওয়েবসাইট উইকিলিকসের কাছে তথ্য ফাঁসের দায়ে ৩৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয় ম্যানিংকে। যুক্তরাষ্ট্রের কানসাস অঙ্গরাজ্যের ফোর্ট লেভেনওর্থ কারাগারে বন্দি আছেন তিনি।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার বারাক ওবামা যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে ম্যানিংয়ের সাজা কমানোর আদেশ দেন। তার বিরুদ্ধে সাত লাখ ৫০ হাজার পৃষ্ঠার নথি ও ভিডিও ফাঁসের অভিযোগ প্রমাণিত হয়।

উইকিলিকসের ওই শ্রেণিবদ্ধ তথ্য ফাঁসের ঘটনা যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় এবং আলোচিত। যার মূলহোতা অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাস্যাঞ্জ। ব্র্যাডলি ম্যানিং ২০১০ সালে ইরাকে দায়িত্ব পালনের সময় সাত লাখের বেশি গোপন নথি, যুদ্ধক্ষেত্রের ভিডিও ও কূটনৈতিক বার্তা উইকিলিকসের কাছে তুলে দেন। এর মধ্যে ২০০৭ সালে সেনাবাহিনীর একটি অ্যাপাচে হেলিকপ্টারের মাধ্যমে বাগদাদে ১২ বেসামরিক নাগরিককে হত্যার ভিডিও ফুটেজও ছিল। আরও ছিল ইরাক ও আফগানিস্তান থেকে ধরে নিয়ে যাওয়া অনেককে গুয়ানতানামো কারাগারে বিনা বিচারে আটকে রাখার তথ্য।

ম্যানিংয়ের কাছ থেকে পাওয়া নথি জুলিয়ান অ্যাস্যাঞ্জ তার ওয়েবসাইট উইকিলিকসে প্রকাশ করলে সারাবিশ্বে তোলপাড় শুরু হয়, অস্বস্তিতে পড়তে হয় ওয়াশিংটন।

২০১৬ সালের ডিসেম্বরে লিঙ্গ পরিবর্তন করেন ম্যানিং। গতবছর কানসাস অঙ্গরাজ্যের এক পুরুষ কারাগারে আত্মহত্যার চেষ্টা করে ব্যর্থও হয়েছেন তিনি। ওই বছর ম্যানিং লিঙ্গ পরিবর্তন করার দাবিতে অনশনও পালন করা শুরু করেন। পরে সেনাবাহিনী তাকে চিকিৎসার মাধ্যমে লিঙ্গ পরিবর্তনের সুযোগ দিলে অনশন ভঙ্গ করেন। লিঙ্গ পরিবর্তনের পর নারী হিসেবে পরিচিতি পান তিনি। এর আগে তার নাম ছিল ব্রাডলি এডওয়ার্ড ম্যানিং।

ওবামার ক্ষমতার শেষ বেলায় এসে এমন সিদ্ধান্তে মিশ্র প্রতিক্রিয়াও দেখা দিয়েছে আমেরিকানদের মধ্যে। এ বিষয়ে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার একজন প্রাক্তন কর্মকর্তা বলেন, ‘নির্বাহী ক্ষমতার অপব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর অবমূল্যায়ন করা হয়েছে।’

ওবামার এ সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে রিপাবলিকানরা। দলটির প্রভাবশালী সিনেটর জন ম্যাককেইন এক বিবৃতিতে সাজা কমানোর সিদ্ধান্তকে ‘বড় ভুল’  অ্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন, এটি আরও অনেককে গুপ্তচরবৃত্তিতে উৎসাহিত করবে।

তবে ম্যানিংয়ের সাজা কমায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন তার আইনজীবী ডেভিড কুম্বস। একে ওবামার ‘ঔদার্য’ অভিহিত করে তিনি বলেছেন, চেলসি ও আমি দুজনেই কৃতজ্ঞ।

ওবামার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন লন্ডনের একুয়েডর দূতাবাসে স্বেচ্ছাবন্দি উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। এক টুইটে তিনি বলেন, যারা চেলসি ম্যানিংয়ের সাজা মওকুফের আন্দোলন করে যাচ্ছিলেন, তাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আপনাদের সাহস আর মনোবল অসম্ভবকে সম্ভব করেছে।

এসবিসি/এনকে