মিসাইল ছুঁড়েছে ইরান

মিসাইল ছুঁড়েছে ইরান

এসবিসি ডেস্ক : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের হুঁশিয়ারি পাত্তা তো পেলই না ইরানের কাছে, বরং আমেরিকার মুখে ছাই দিয়ে ইরান মাঝারি পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ‘খোরামশার’ পরীক্ষা করে ফেলেছে। ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রূহানী বলেছেন, ইরান সামরিক শক্তি বাড়াবে। এক্ষেত্রে কোন দেশের অনুমতি নিতে হবে বলে ইরান মনে করে না, সাফ জনিয়ে দিয়েছে রূহানীর সরকার। বিবিসি

গেল মঙ্গলবার জাতিসংঘে বেশ লাফঝাঁপ করেছেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট। ইরানের মিসাইল পরীক্ষার তীব্র সমালোচনা করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প, ২০১৫ সালে দেশটির সাথে পারমাণবিক পরীক্ষা সংক্রান্ত কাজকর্মের নিন্দা জানান তিনি। ট্রাম্পের সতর্কবাণীর পর দু’দিন পার হয়, তৃতীয় দিনে মাথা জাগায় ইরান। শুক্রবারেই তেহরানে এক সামরিক কুচকাওয়াজে মাঝারি পাল্লার মিসাইলটি প্রদর্শন করা হয়।

এরপর পরই ক্ষেপণাস্ত্রটির সফল উৎক্ষেপণ সম্পন্ন হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। টেলিভিশনে এই উৎক্ষেপণ সরাসরি দেখানো হলেও এর সঠিক সময়টি জানানো হয়নি।

সেনা কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ইরানের গণমাধ্যম জানিয়েছে, এই মিসাইল বেশ কটি ওয়্যারহেড বহনে সক্ষম। খোরামশার নামক এই বেলিস্টিক মিসাইল-এর রেঞ্জ ২ হাজার কিলোমিটার বা ১ হাজার ২ শ’ ৪২ মাইল।

ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জেনারেল আমীর হাতামি এই মিসাইলের কারিগরি উৎকর্ষ সম্পর্কে জানিয়েছেন। তার ভাষায়, মিসাইল খোরামশার প্রতিপক্ষের আকাশ-প্রতিরক্ষা গুড়িয়ে দিতে সক্ষম। উৎক্ষেপণের পর টার্গেটে আঘাত না হানা পর্যন্ত এর ওপর যে নিয়ন্ত্রণ বজায় থাকে, সেটিই একে দুর্ধর্ষ করে তুলেছে।

এসবিসি/এসবি