সরকার কেন প্রশ্ন ফাঁসে জড়িতদের ধরতে পারবে না?

সরকার কেন প্রশ্ন ফাঁসে জড়িতদের ধরতে পারবে না?

লুৎফুর জামশেদ চৌধুরী শিপু : প্রতিদিনই তো প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে ফেসবুক, ওয়াটসঅ্যাপ কিংবা মেসেঞ্জারে। আর আমি মনে করি,এজন্য একমাত্র দায়ী হচ্ছে, যে জায়গা থেকে প্রশ্ন ছাপানো হয়। তারা অসচেতনভাবে প্রশ্ন ছাপায় বলেই প্রশ্নগুলো ফাঁস হয়। তা না হলে এতো কঠোর আইন বাস্তবায়নের পরও কেমনে প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে!

গতকাল প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় বাওয়া স্কুলের আটক হওয়া দুই শিক্ষার্থীকে আমি চিনি। তারা অনেক মেধাবী; স্কুলে ফার্স্ট গার্ল। এমনকি বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে তারা পুরস্কারও পেয়েছে, সুনাম কুড়িয়েছে। যখন প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে, তখন তারা হয়তো চিন্তা করেছে যে; অন্যরা প্রশ্ন পেয়ে ভালো করে পরীক্ষা দিলে আমরাও তা করবো। তাছাড়া প্রত্যেক মা-বাবাই চান তাদের সন্তান পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করুক। আর এ কারণেই হয়তো তাদের বাবা তাদেরকে ফাঁস হওয়া প্রশ্ন দেখিয়েছিলেন। আর বাওয়া স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে লেখাপড়ার প্রতি অনেক প্রতিযোগিতা আছে, অর্থাৎ একজন ভালো ফলাফল করলে আরেকজন তার চেয়ে ভালো ফলাফল করতে চায়। তবে প্রশ্ন রয়ে যায়, কেন শিক্ষার্থীরা ফাঁস হওয়া প্রশ্ন দেখে এবং অভিভাবকরাও কেন তাদের সন্তানদের নিষেধ করে না। এমনকি প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় অনেক শিক্ষককেও আটক বা বহিষ্কার করা হয়েছে, যে শিক্ষক মানুষ গড়ার কারিগর।

এস.এস.সি. পরীক্ষা অনেক শিক্ষার্থীর কাছে স্বপ্ন স্বরূপ। অর্থাৎ এস.এস.সি. পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা তাদের স্বপ্নের চট্টগ্রাম কলেজে পড়বে কিংবা সরকারি কোনো কলেজে পড়বে। অভিভাবকদেরও একই স্বপ্ন। আর প্রশ্নফাঁসের ঘটনায় বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীদের এবং তাদের অভিভাবকদের স্বপ্ন আজ ভেঙেচুরমার!

প্রশাসনের ব্যর্থতার ফলাফল নিতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। বাওয়া স্কুল চট্টগ্রাম বোর্ডে প্রতিবছর ১ম বা ২য় স্থান লাভ করে। ঐ দুই শিক্ষার্থীর কারণে হয়তো বাওয়া স্কুল পিছিয়ে পড়বে।  আমিও একজন অভিভাবক এবং সরকারি দলের সমর্থক। আমার সরকার যদি স্বাধীনতাবিরোধী তথা রাজাকারদের ফাঁসি দিতে পারে তাহলে প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় জড়িতদের ধরতে পারবে না কেন? এটা বলতে আমি কোনো দ্বিধা করছি না যে সরকারকে বিভ্রান্তিতে ফেলার জন্য প্রশ্নফাঁসের মতো অপরাধ করা হচ্ছে। কারণ যে সরকার বাংলাদেশে উন্নয়নের জোয়ার সৃষ্টি করেছে, এমনকি বিনামূল্যে বইও বিতরণ করছে, সেই সরকার কখনো শিক্ষাক্ষেত্রে ব্যর্থতার পরিচয় দিতে পারে না।

পরিচিতি : লুৎফুর জামশেদ চৌধুরী শিপু, চট্টগ্রামের বাসিন্দা। ফেসবুকে নিজের পরিচয় দেন গৃহিনী ও মা হিসেবে।  প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে এই লেখাটি তার ফেসবুক থেকে নেয়া।

এসবিসি/এলজেসি/এসবি