পথে নেমেছে ১৭ লাখ

পথে নেমেছে ১৭ লাখ

এসবিসি ডেস্ক : আমেরিকার পূর্ব উপকূলের হাইওয়েতে শুধু গাড়ি আর গাড়ি। ঘূর্ণিঝড় ফ্লোরেন্সের তাণ্ডব থেকে রক্ষা পেতে নিরাপদ স্থানে যাচ্ছেন মানুষ। স্মরণ কালের ভয়াবহতম এই ঝড়ের গতিপথ থেকে ১৭ লাখ মানুষকে সরে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সাউথ ক্যারোলিনা, নর্থ ক্যারোলিনা ও ভারজিনিয়ার উপকূলের বাসিন্দা। বিবিসি

ঘরছাড়া মানুষদের দ্রুত নিরাপদ স্থানে পৌছাতে সাউথ ক্যারোলিনা কর্তৃপক্ষ তাদের চারটি মহাসড়ককে একমুখী করে দিয়েছে। ঘূর্ণিঝড় ফ্লোরেন্স শুক্রবার সকালে আঘাত হানবে, এখন পর্যন্ত আবহাওয়া কর্মকর্তারা তাই বলছেন। ক্যাটাগরি ফোর ঝড়টি ঘণ্টায় ২১৫ কিলোমিটার বেগে স্থলভূমিতে আঘাত করবে। সাউথ ক্যারোলিনা, নর্থ ক্যারোলিনা ও ভার্জিনিয়ার পাশাপাশি মেরিল্যান্ড ও ওয়াশিংটন ডিসিতে অতিবন্যার আশংকায় জরুরি অবস্থা জারি করে হয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলেছেন, হ্যারিকেন ফ্লোরেন্স প্রায় ১৭০ বিলিয়ন ডলার সমপরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি ঘটাবে। গত কয়েক দশকে এই অঞ্চলে এতো শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ের দেখা আর মেলেনি। ১৯৮৯ সালে ঘূর্ণিঝড় হুগো ছিল এ সময়কালের সবচেয়ে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়। নর্থ ক্যারোলিনায় হুগোর তাণ্ডবে ৪৯ জনের প্রাণহানি ঘটে। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ছিল ৭ বিলিয়ন ডলার।

এসবিসি/এসবি