মেডিকেল বোর্ডের বক্তব্য স্ববিরোধী

মেডিকেল বোর্ডের বক্তব্য স্ববিরোধী

এসবিসি রিপোর্ট : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে মেডিকেল বোর্ডের বক্তব্য স্ববিরোধী এবং তা সরকারের চিন্তারই প্রতিফলন।’ আজ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘সরকারী দলের অনুগত চিকিৎসকদের দিয়ে গঠিত মেডিকেল বোর্ড বিশ মিনিটে তথাকথিত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বিএসএমএমইউ-তে ভর্তির পরামর্শ দিয়েছেন। মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা বলেছেন-বেগম জিয়ার পুরনো রোগগুলোই তারা পেয়েছেন, অন্য কিছু নয়। অর্থাৎ আমরা পূর্বেই বলেছিলাম-দেশনেত্রীর স্বাস্থ্য নিয়ে সরকার দলের অনুগত বোর্ড সদস্যরা সরকারের পছন্দানুযায়ী পরামর্শ দেবেন, সেটিই প্রমাণিত হলো।’

রিজভী বলেন, ‘দেশনেত্রীর স্বাস্থ্য যদি ঝুঁকিপূর্ণ না হয় তাহলে অন্যের সাহায্য ছাড়া তিনি এপাশ ওপাশ হতে পারেন না কেন ? দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে গঠিত সরকারী মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শ একদেশদর্শী ও সার্বজনীন চিকিৎসানীতির পরিপন্থী। একজন রোগীকে তাঁর পছন্দ অনুযায়ী চিকিৎসা দেয়া উচিৎ, এটি তাঁর মানবাধিকার, সেটি না করে কর্তৃপক্ষ জোর করে নিজেদের পছন্দের চিকিৎসকদের দিয়ে দেশনেত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো চরম প্রতিহিংসাপরায়ণ জেদেরই বহি:প্রকাশ। বেগম খালেদা জিয়াকে চরম স্বাস্থ্যঝুঁকিতে নিয়ে যাওয়ার জন্যই সরকারের ইচ্ছা অনুযায়ী মেডিকেল বোর্ড ‘ম্যানুফ্যাকচারিং প্রতিবেদন’ দিয়েছে, আর সেজন্যই বেগম জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদেরকে বোর্ডে অন্তর্ভূক্ত করা হয়নি। আমি দলের পক্ষ থেকে কর্তৃপক্ষের এই একগুঁয়েমী ও প্রতিহিংসাপরায়ণতার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে মেডিকেল বোর্ডে তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের অন্তর্ভূক্ত করে বেসরকারী কোন বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্ত্তি করে সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিচারবহির্ভূত হত্যার কথা উল্লেখ করে অবিলম্বে এসব বন্ধের দাবি জানানো হয়। বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের নিন্দা জানান রিজভী, অবিলম্বে গ্রেপ্তার নেতাকর্মীদের মুক্তিদাবি করেন তিনি।

এসবিসি/এসবি